পাঁচ মাসের ব্যবধানে মেয়ে হয়ে গেল ছেলে, হতভম্ব বাবা-মা

নাম ছিল লাভলী আক্তার। ছেলেতে রূপান্তরিত হয়ে এখন

হয়েছেন আব্দুল্লাহ জিসান। দেবেন এসএসসি পরীক্ষা। ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের

নঠুরচর পশ্চিমপাড়া গ্রামে। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। মেয়ে থেকে ছেলেতে রূপান্তরিত হওয়া লাভলী আক্তারকে

এক নজর দেখতে প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে ভিড় জমাচ্ছেন অসংখ্য মানুষ। বেশ কয়েকদিন আগেই তার শরীরে

পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায় বলে জানিয়েছেন প্রতিবেশীরা। বাবা লাভলু মিয়া জানান, তার মেয়ে এবার মির্জাপুর বিএল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে

এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেবে। ৭ অক্টোবর তিনি স্ত্রীর কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পারেন। লাভলী প্রথমে তার মাকে বিষয়টি জানায়। এখন তার শারীরিক

গঠন পুরুষের মতো। এছাড়া চেহারাতেও কিছুটা পরিবর্তন এসেছে। ছেলেতে রূপান্তরিত হওয়ায় নাম রেখেছেন আব্দুল্লাহ জিসান।

মেয়ে থেকে ছেলে বনে যাওয়া লাভলী আক্তার জানান, চার-পাঁচ মাস আগে থেকেই এমন কিছু ঘটছে বলে আন্দাজ করতে পারেন তিনি। কিন্তু লোক-লজ্জায় তখন কিছু বলতে পারেননি।

মা পারভিন আক্তার জানান, ছয় মাস আগে লাভলী আক্তারের বিয়ে ঠিক হয়। বিয়ে করতে অসম্মতি জানিয়ে নিজের রূপান্তরিত হওয়ার বিষয়টি জানায়। প্রথমে বিশ্বাস না করলেও সবকিছু দেখে শুনে বিশ্বাস করেন তিনি।

তিনি আরো জানান, আল্লাহ তাকে মেয়ে থেকে ছেলে বানিয়ে দিয়েছেন। আগে আমাদের দুই মেয়ে ছিল। এখন এক ছেলে ও এক মেয়ে হওয়ায় আমরা খুবই খুশি।

গোপালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আলিম আল রাজি বলেন, আমাদের দেশে মাঝে মধ্যেই এ ধরনের ঘটনা ঘটে। এটা সাধারণত হরমোন পরিবর্তনের কারণে হয়ে থাকে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*