ধীরে ধীরে নেমে যাচ্ছে ভূগর্ভস্থ জলস্তর! 2050 সালের পর একফোঁটাও জল পাবে না ভারতসহ 500 কোটি মানুষ! চিন্তার ঘুম উড়েছে বিজ্ঞানীদের!

জলের অপর নাম জীবন । সেই ছোটবেলা থেকে পাঠ্যপুস্তকে এমনটাই জেনে আসছি আমরা । কিন্তু সেই জ্ঞান আমাদের মধ্যে থাকলেও

তার ব্যবহারেই সমাজে কতখানি হচ্ছে সে ব্যাপারে রয়েছে গভীর প্রশ্ন । কারণ কলের জল যদি রাস্তায় খোলা থাকে তাহলে আমরা কেউ সেটি বন্ধ করে দিন না বা অকারণে জল অপচয় কোনো অর্থেই আমরা

কমিয়ে ফেলতে পারছি না । যার ফলে একদিন জল পৃথিবী ভূপৃষ্ঠ থেকে অনেকটা নিচে নেমে যাবে এমনটা বললে হয়ত খুব একটা ভুল হবেনা । এবার সেই আ-শঙ্কা মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে গোটা বিশ্বের

কাছে । যার ফলে আগামী ২৯ বছরের মধ্যেই ভারতসহ ৫০০ কোটির বেশি মানুষ এক ফোটাও জল পাবে না এমনটা জানাচ্ছে রাষ্ট্রপুঞ্জ । ওয়ার্ল্ড মেটিরিওলজিক্যাল অর্গানাইজেশন তাদের রিপোর্টে

এমনটা জানিয়েছেন যে এই সমস্যা থেকে কিভাবে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে সে ব্যাপারে একটি বিস্তারিত আলোচনা করা দরকার। এই জন্য গোটা বিশ্বের রাষ্ট্রনেতা দের সাথে একটি

আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে । তার পাশাপাশি সেই রিপোর্টে জানানো হয়েছে যে গত কুড়ি বছরে ভারতবর্ষে আবহাওয়ার ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে যা কখনো এর আগে লক্ষ্য করা যায়নি । ভূপৃষ্ঠের নিচে নামতে শুরু করেছে এবং এমনটা জানানো হচ্ছে যে প্রতিবছর এক সেন্টিমিটার এর নিচের দিকে নেমে যাচ্ছে ।

দ্রুত যদি এই সমস্যার সমাধান না করা হয় তাহলে আগামী ২৯ বছরের মধ্যে ভারতবর্ষসহ বিশ্বের ৫০০ কোটির বেশি মানুষ ছিটে ফোটাও জল পাবে না এমনটা জানাচ্ছে সমীক্ষা । চরম জলাভাব দেখা দেবে উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার পশ্চিম অংশ, ভূমধ্যসাগর,

উত্তর ও দক্ষিণ আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য, মধ্য এশিয়া, পূর্ব এশিয়া ও দক্ষিণ এশিয়ায়। চরম জলাভাবে ভুগবে দক্ষিণ-পূর্ব অস্ট্রেলিয়াও ।জলস্তরের এই অধোগতি সবচেয়ে বেশি হয়েছে অ্যান্টার্কটিকা ও গ্রিনল্যান্ডে। পৃথিবীতে যে পরিমান জল রয়েছে

জল রয়েছে তার ০.৫ শতাংশ জল ব্যবহারযোগ্য ।এই ব্যবহারযোগ্য জলের ভাণ্ডার ক্রমশ ফুরিয়ে আসছে । যার ফলে চিন্তিত হয়ে পড়েছে বিশেষজ্ঞরা । যে সমস্ত জল ব্যবহার যোগ্য নয় তাদেরকে কিভাবে ব্যবহারযোগ্য করা যাবে সে ব্যাপারে চলছে নিরন্তর গবেষণা ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*