জ;ঙ্গলে নদীর ধারে যেতেই লঙ্কা কা’ন্ড, নদীর ধারে পড়ে আছে প্রচুর হাসের ডিম, ডিম দেখে অ’বা’ক ‍যুব’তী, ভিডিও তুমুল ভাই’রাল

হাঁস অ্যানাটিডি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত পাখিদের বেশ কিছু প্রজাতির সাধারণ নাম। অ্যানাটিডি পরিবারের অন্য দুই সদস্য ম’রাল আর রাজহাঁস থেকে

এরা আকারে ভিন্ন। হাঁসেরা এ শ্রেণীর বেশ কয়েকটি উপশ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত। শা’রীরিক দিক থেকে হাঁস চ্যাপ্টা ঠোঁট ও খাটো গলাবিশিষ্ট মাঝারি থেকে ছোট আকারের পাখি। স্ত্রী’ ও পুরুষ হাঁসের মধ্যে

বৈসাদৃশ্য দেখা যায়। এদের ডাকও বেশিরভাগক্ষেত্রে ভিন্ন। পুরুষ হাঁস বছরে দুইবার পালক বদলায়। স্ত্রী’ হাঁস একসাথে অনেকগুলো ডিম পাড়ে এবং ডিমের খোলস রাজহাঁস বা

ম’রালের মত খসখসে নয়, মসৃণ। বেশিরভাগ হাঁসই জলচর; স্বাদুপানি আর লোনাপানি দুই ধরনের পরিবেশেই এরা বিচরণ করতে পারে। প্রায় একই রকম দেখতে আর আচরণগত সাদৃশ্য থাকলেও

পাতি কুট, মা’র্গেঞ্জার, ডুবুরি প্রভৃতি পাখি হাঁস নয়। ডিমে প্রোটিন আছে প্রায় ছয় গ্রাম, যাতে রয়েছে মানবদেহের জন্য অ’ত্যাবশ্যকীয় নয়টি অ্যামিনো অ্যাসিড। মুরগির ডিমে রয়েছে

অ’তি মূল্যবান ওমেগা-৩, যা হৃৎপিণ্ডকে কার্যকর রাখতে সাহায্য করে। কোলিন ডিমের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, যা গর্ভবতী মায়ের মস্তিষ্কজনিত জটিলতা দূরীকরণে সহায়তা করে, গর্ভাবস্থায় শি’শুর মেধা ও স্মৃ’তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। ডিমে আছে ফলিক অ্যাসিড অথবা ফোলেট, যা ত্রুটিপূর্ণ সন্তান জন্ম’দানের ঝুঁ’কি কমায়।

এ ছাড়া রয়েছে সেলেনিয়াম, যা মানুষের মানসিক চাপ কমাতে সহায়তা করে এবং ক্যানসার, বিশেষত প্রোস্টেট ক্যানসার রোধে সহায়তা করে।সম্প্রতি সোস্যাল মিডিয়ায় এমন একটি ভিডিও ভাই’রাল হয়েছে। ভিডিওটি সোস্যাল মিডিয়ায় আসার সাথে সাথে ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। ভাই’রাল ভিডিওটি টি আপনারা নিচে গেলেই দেখতে পাবেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*