মিলবে ব্যাংকের থেকেও ডবল সুদ! বিনিয়োগ করুন এই সরকারি স্কীমে! জানুন খুঁটিনাটি।

এই মুহূর্তে প্রায় প্রতিটি মানুষ এমনটা ভেবে কূলকিনারা পারছেন না যে তাদের উপার্জন করা টাকা কোথায় বিনিয়োগ করবেন। কারণ বিনিয়োগ করার আগে

অতি অবশ্যই আপনাকে জেনে নিতে হবে যে আপনি যেখানে বিনিয়োগ করছেন সেটি সুরক্ষিত এবং বিশ্বস্ত কিনা।নইলে মুহূর্তের মধ্যে কিন্তু সারা জীবনের উপার্জন করা টাকা ধুলিস্যাৎ হয়ে যেতে পারে। বর্তমানে

রিজার্ভ ব্যাংকের তরফ থেকে রেপো রেট কমিয়ে দেওয়ার কারণে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ গুলি তাদের সুদ কমিয়ে দিয়েছে। এই তালিকা থেকে বাদ যায়নি ভারতের সবথেকে বড় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক

স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া। মানুষ এখন ব্যাংক এর পাশাপাশি পোস্ট অফিসের উপর ভরসা রাখছে। এবং পোস্ট অফিসে যে সমস্ত সুবিধা গুলো গ্রাহকদের দেওয়া হচ্ছে তা নিশ্চিত ভাবে

আকৃষ্ট করছে অনেক বেশি গ্রাহকদেরকে। ব্যাংক এর তুলনায় এখন পোস্ট অফিসের দিকে অভিমুখ প্রায় সকল গ্রাহকদের। এই পোস্ট অফিসে একটি বিশেষ সুবিধা রয়েছে যার নাম হচ্ছে

রেকারিং ডিপোজিট যাকে সংক্ষিপ্তভাবে আরডি বলা হয়ে থাকে। এই রেকারিং ডিপোজিট যে কোন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক অর্থাৎ আপনি স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া তে করাতে পারেন। কিন্তু পোস্ট অফিসের সাথে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার রেকারিং ডিপোজিট রয়েছে বিস্তর পার্থক্য কি পার্থক্য রয়েছে আসুন জেনে নি।

১)প্রথমত আপনি যদি ব্যাংক এর রেকারিং ডিপোজিট করান তাহলে সেক্ষেত্রে আপনি সুদ পাবেন ৫.৪ শতাংশ হারে এবং প্রবীণ নাগরিক হলে আরো ০.৪% অতিরিক্ত পেয়ে যাবেন। কিন্তু সেই রেকারিং ডিপোজিট যদি আপনি পোস্ট অফিসে করে থাকেন তাহলে আপনি সুদ পাবেন ৫.৮ শতাংশ।

২)স্টেট ব্যাঙ্কের আরডি-তে ১-১০ বছরের জন্য ডিপোজিট করতে পাবেন। ১ বছর থেকে ৫ বছর মেয়াদে আমানত করার সুযোগ দেয় পোস্ট অফিস।

৩)পোস্ট অফিসে অনলাইনের মাধ্যমে শুধুমাত্র আপনি এই রেকারিং ডিপোজিট এর ক্যাশ তুলতে পারবেন। কিন্তু রেকারিং ডিপোজিট তুলতে পারবেন না। অপরদিকে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া তে কিন্তু আপনি অনলাইনে মাধ্যমে ক্যাশ এবং চেক উভয় তুলে নিতে পারবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*