পরিচালকের জোরাজুরিতে অনিচ্ছা সত্ত্বেও একটি হোটেলকক্ষে যায়

অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে বলিউডে নিজের অবস্থান পাকাপোক্ত করেছেন অভিনেত্রী বিদ্যা বালান। অন্য

অনেকের মতো ক্যারিয়ারের প্রথমদিকে নানা বাজে অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে

যেতে হয়েছে ‘ডার্টি পিকচার্স’খ্যাত বিদ্যাকে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজের প্রতিবেদনে জানা যায়, দীর্ঘ বছর মিডিয়া অঙ্গনে পার করার পর এবার

হয়রানির স্বীকার হওয়া নিয়ে মুখ খুলেছেন বিদ্যা বালান। অবশ্য রুপালি জগতে ‘কাস্টিং কাউচ’ শব্দটি নতুন নয়। অভিনেত্রী থেকে

শুরু করে মডেলদের হয়রানি করতে মোক্ষম অস্ত্র হিসেবে ব্যবহৃত হয় এ পন্থা। রিচা চাড্ডা থেকে শুরু করে স্বরা ভাস্কর, হয়রানির স্বীকার হওয়া নিয়ে

মুখ খুলেছেন অনেকেই। নতুন করে সেই তালিকায় যুক্ত হলো বিদ্যা বালানের নাম। সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে বিদ্যা বালান জানান,

ক্যারিয়ারের প্রথম দিকে দক্ষিণী সিনেমার মাধ্যমে অভিনয় জগতে আসতে চেয়েছিলেন তিনি। পরিকল্পনা অনুযায়ী এক পরিচালকের সঙ্গে

সাক্ষাৎ করতে চেন্নাই যান বিদ্যা। কোনো কফি হাউজে বসে আলাপ সেরে নেওয়ার ইচ্ছে ছিল তাঁর। কিন্তু পরিচালকের জোরাজুরিতে অনিচ্ছা সত্ত্বেও একটি হোটেলকক্ষে দেখা করেন।

পরিচালকের আচরণে বিরক্ত হচ্ছিলেন বিদ্যা। হোটেলকক্ষের দরজা খোলা রেখেছিলেন বিদ্যা, আর অবস্থা বেগতিক দেখে সেই পরিচালক পাঁচ মিনিটের মধ্যেই সেখান থেকে বেরিয়ে যান। সেদিনের সেই ঘটনা মনে পড়লে এখনো ভীত হয়ে পড়েন বিদ্যা বালান।

‘পরিণীতা’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হওয়া বিদ্যা উপহার দিয়েছেন বেশকিছু ব্লকবাস্টার সিনেমা।‘ দ্য ডার্টি পিকচার্স’, ‘কাহানি’, ‘ভুলভুলাইয়া’তে তাঁর অভিনয় নজর কাড়ে সবার।

বিদ্যা বালান অভিনীত সাম্প্রতিক ‘মিশন মঙ্গল’-এর ব্যাপক সাফল্য নিয়েও উৎফুল্ল নায়িকা। একদল সাধারণ মানুষের অভূতপূর্ব সাফল্যের গল্পই বিধৃত হয়েছে জগন শক্তি পরিচালিত ‘মিশন মঙ্গল’-এ। ছবিটি এ পর্যন্ত আয় করেছে ১৬৮ কোটি রুপি।

‘মিশন মঙ্গল’-এ দেখানো হয়েছে, কীভাবে ভারতীয় বিজ্ঞানীরা অসম্ভবকে সম্ভব করে জয় করেছেন মঙ্গলগ্রহ। নারী বিজ্ঞানীদের বিজয়গাথাও তুলে ধরা হয়েছে সিনেমাটিতে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*