হাত ভেঙ্গে মাঠের বাইরে সাব্বির

জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) থেকে মাঠের বাইরে জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাব্বির রহমান। মাঠে ফেরার আগে

১৫ দিন বিশ্রামে কাটাতে হবে তাকে। সাব্বিরের কবজিতে ফাটল দেখা গেছে। তাকে

বিশ্রামের পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। ১৫ দিনের বিশ্রামের পর চোটের ধরন পর্যবেক্ষণ করে জানা যাবে সাব্বির কবে

মাঠে ফিরছেন। দ্রুত সেরে ওঠার জন্য দোয়া কামনা করে ফেসবুকে সাব্বির লিখেছেন,

‘জাতীয় ক্রিকেট লিগ চলাকালে কবজিতে ফ্র্যাকচার হয়েছে। ১৫ দিন বিশ্রামে থাকতে হবে। আমার জন্য দোয়া করবেন।’

আরো পড়ুন= লিটনকে নিয়ে ‘যত রান তত মূল্যছাড়’ অফারে ক্ষুব্ধ স্ত্রী

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের স্বপ্ন নিয়ে দুবাই উড়াল দিয়েছিল বাংলাদেশ দল। কিন্তু সুপার টুয়েলভে প্রথম তিন ম্যাচে হারেই সেই স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে টাইগারদের। এবারের

বিশ্বকাপটা খুবই বাজে কাটছে টাইগার ওপেনার লিটন দাসের। একের পর এক ম্যাচে ব্যাট হাতে তার ব্যর্থতা আক্ষেপে পুড়াচ্ছে ভক্ত-সমর্থকদের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তার হাত থেকে ছুটে যাওয়া দুইটি ক্যাচের মাসুল গুনতে হয়েছে পুরো বাংলাদেশ দলকে। এরপরও ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি লিটন।

সবশেষ শুকবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে রান পেয়েছেন, তবে দলকে জেতাতে পারেননি লিটন। এই ম্যাচেও তার হাত থেকে নিকোলাস পুরানের একটি স্ট্যাম্পিং মিস হয়েছে। লিটনের এমন পারফরম্যান্সে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বইছে। বিশেষ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচের আগে লিটনকে নিয়ে কিছু প্রতিষ্ঠান ব্যবসায়িক উদ্দেশে ‘অফার’ চালু করে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে লিটন যত রান করবেন; পোশাক, খাবার, বই ও ইলেকট্রনিক পণ্য ক্রয়ে পাওয়া যাবে তত ভাগ ডিসকাউন্ট বা মূল্যছাড়- এমন অফারের পোস্টগুলো দ্রুত ভাইরাল হতে থাকে ফেসবুকে। সৃষ্টি হয় হাস্যরসের।

বিষয়টি মেনে নিতে পারছেন না লিটনের স্ত্রী সঞ্চিতা দাস। ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর এমন মানসিকতার কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি। ফেসবুকে নিজের প্রোফাইল থেকে দেওয়া এক পোস্টে লিটন-পত্নী লিখেছেন, ‘কেউ রান করতে না পারলে বা ক্যাচ হাতছাড়া করলে সমস্যা হয় বিষয়টি এমন নয়। সমস্যাটা নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তির ক্ষেত্রে বা তাদের নামে। মানুষ ঠাট্টা করছে বা কৌতুক বানাচ্ছে এটাতে আমাদের কোনো সমস্যা ছিল না, কারণ আমরা এতে অভ্যস্ত।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘যখন দেখলাম তার (লিটন) নাম ব্যবহার করে কেউ কেউ তাদের ব্যবসায়িক ফায়দা লুটতে চাইছে বা পরোক্ষভাবে তার বাজে পারফরম্যান্স কামনা করছে, আমি ভাষাহীন হয়ে পড়লাম। ভেবে দেখুন, এত অশুভ এবং বিকৃত মনের মানুষ, যে কি না নিজের ব্যবসায়িক কৌশলের জন্য বাজে পারফরম্যান্সের প্রার্থনা করছে! লজ্জা!’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*